TahMiD's Blog! Tech, Science Writer & Blogger

যখন আমি আর ঘুমাতে পারি না

প্রতিবারের মতোই আবারো, আবারো আমি ঘুমাতে পারছি না। আমার মস্তিষ্ক আমায় আরাম করতে দিচ্ছি না, যদিও এই অন্ধকারাচ্ছন্ন রাতে নির্ঘুম দীর্ঘনিঃশ্বাস নিতে নিতে আমি ক্লান্ত। আমি নিজেই নিজের মাইন্ড গেমের সিমাবন্ধে আবদ্ধ। এই মানুষিক অত্যাচারে আমি বড়োই অসহায়।

আমাকে ফিরিয়ে নিয়ে যাও সেই রাত গুলোতে, যেখানে তোমার ভালোবাসার কোলে মাথা রেখে আমি নিশ্চিন্তে ঘুমাতাম। ফিরিয়ে দাও আমার সেই উষ্ণতা যেটাতে আমার হৃদয় অভ্যস্ত। ফিরিয়ে দাও তোমার সেই চুমু, যার মৃদু অনুভূতিতে আমি জেগে উঠতে অভ্যস্ত। আমার কানে আবার আমায় “ভালোবাসি” বলে উঠিয়ে দাও, এর থেকে মধুর আর কোন সঙ্গীত শুনতে চাইনা। আবার তোমার নিঃশ্বাসের শব্দ অনুভব করতে চাই। ফিরিয়ে দাও সেই কণ্ঠস্বর, যেটা না শুনে আমি কোন দিন কোন রাত ই সম্পূর্ণ ছিলাম না।

এখন শুধু এপাশ আর ওপাশ করেই সারারাত কেটে যায়, মাথার মধ্যে তোমার কন্ঠ শুনতে পাই কিন্তু কানে ধ্বনিত হয় না। যতক্ষণ ঘুম এসে না চেপে বসে ঘুমাতে পারি না। ঘুম মানেই আরেকটা দুঃস্বপ্ন হয়তো, আর সেখানেও আমাকে শুধু ব্যাথা দেবার জন্যই তোমার আবির্ভাব ঘটবে।

এখন মনে হয়, আমি নিজের হৃদয়কেই বারবার ভাঙার জন্য জীবিত রয়েছি। মাঝেমাঝে এমন অনুভূত হয়, এই তোমার কোলে মাথা রেখে আছি, আবার এই আমার মাথা পেরেকে আটকে গেছে, রক্ত বের হচ্ছে, কষ্ট হচ্ছে। তুমি আমাকে জানতে, ভালোবাসতে, গ্রহণ করেছিলে। তুমি সবার আগে আমাকে সাপোর্ট করেছিলে। আর তুমিই সেই একমাত্র ব্যক্তি যে আমাকে বঞ্চিত করে রেখে চলে গেছো।

এখন আমি সত্যিই জানি না, তোমাকে কখনো ভালোবাসা থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারবো কিনা। আমি সত্যিই জানি না, আমি কখনো আর শান্তির সেই ঘুম ঘুমাতে পারবো কিনা। আমি সারাদিন নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পারি হয়তো, কিন্তু ঘুমের সময়, তুমি চলেই আসো… আর তুমি সেটা জানো।

লেখকের সম্পর্কে

Tahmid Borhan

ইন্টারনেটে অধিকাংশ রিডার আমাকে প্রযুক্তি ব্লগার এবং একজন টেকগীক হিসেবেই চেনেন। এছাড়াও আমি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে থাকি, নতুন নতুন জিনিষ শিখতে এবং এক্সপ্লোর করতে ভালোবাসি, প্রচণ্ড মুভি দেখি ও গান শুনি, বিজ্ঞান চর্চা করতে ভালোবাসি।

ঠিক যখনই আমি জীবনের অর্থ খুঁজে পেলাম, সে তা বদলে দিল!

Add comment

TahMiD's Blog! Tech, Science Writer & Blogger

Tahmid Borhan

ইন্টারনেটে অধিকাংশ রিডার আমাকে প্রযুক্তি ব্লগার এবং একজন টেকগীক হিসেবেই চেনেন। এছাড়াও আমি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে থাকি, নতুন নতুন জিনিষ শিখতে এবং এক্সপ্লোর করতে ভালোবাসি, প্রচণ্ড মুভি দেখি ও গান শুনি, বিজ্ঞান চর্চা করতে ভালোবাসি।

ঠিক যখনই আমি জীবনের অর্থ খুঁজে পেলাম, সে তা বদলে দিল!